logo

orangebd logo
পুলিশ নিয়োগ পরীক্ষায় ড্রাগ টেস্টের নির্দেশ
বাকী বিল্লাহ

পুলিশ নিয়োগে মেডিকেল টেস্টে কোন সদস্য মাদকাসক্ত হলে তার চাকরি হবে না। এজন্য স্বাস্থ্য পরীক্ষার সময় ড্রাগ টেস্ট করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। গতকাল পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স থেকে বিভিন্ন জেলা এসপিদের কাছে এই সংক্রান্ত নির্দেশ দেয়া হয়েছে। মোবাইলে ম্যাসিজ পাঠিয়ে জরুরি এই নির্দেশ দেয়া হয়। অন্যদিকে এর আগে সাব-ইন্সপেক্টর নিয়োগে ড্রাগ পরীক্ষায় ১০ থেকে ১২ জনের শরীরে মাদকের অস্তিত্ব পাওয়ায় তাদের নিয়োগ আর চূড়ান্ত হয়নি। পুলিশ কর্মকর্তাদের মতে, কোন মাতাল ছেলেকে পুলিশে নিয়োগ দেয়া হবে না। তা হলে সমস্যা হবে। তাই পুলিশ নিয়োগে নতুন করে মাদক পরীক্ষার ওপর কড়াকড়ি আরোপ করা হয়েছে।

পুলিশ সূত্র জানায়, গত ৮ এপ্রিল থেকে ১০ হাজার পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করা হয়েছে। এই প্রক্রিয়া চলবে ২২ এপ্রিল পর্যন্ত। নির্বাচনসহ অন্য কারণে দুই একটি জেলায় ২ দিন পরে নিয়োগে পরীক্ষা শুরু হবে। ১০ হাজার পুলিশ সদস্যের মধ্যে ৮ হাজার ৫শ জন পুরুষ ও ১৫শ নারী কনস্টেবল নিয়োগ দেয়া হবে। কনস্টেবল নিয়োগে শারীরিক পরীক্ষা, লিখিত পরীক্ষা ও লিখিত পরীক্ষার ফলাফল ও মৌখিক পরীক্ষার মাধ্যমে নিয়োগ চূড়ান্ত করার নিয়ম রয়েছে। এসব পরীক্ষায় উত্তীর্ণ সদস্যদের কনস্টেবল হিসেবে নিয়োগ দেয়ার কথা রয়েছে। কিন্তু গতকাল পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের ম্যাসেজ বার্তায় নতুন করে বলা হয়েছে। নিয়োগ প্রত্যাশিরা মাদকাসক্ত কিনা তা পরীক্ষা করতে হবে। ড্রাগ পরীক্ষায় কোন সদস্যের শরীরে মাদকের উপস্থিতি প্রমাণ পাইলে তার চাকরি না হওয়ার সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি। এদিকে পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের ম্যাসেজ পেয়ে অনেক জেলা এসপি গতকাল থেকে নতুন নির্দেশ পালনের জন্য তৎপর হয়ে উঠেছে। কারণ পুলিশে কোন নেশাগ্রস্ত সদস্যকে নিয়োগ দিলে সে যোগদানের পরে নানা অপকর্মে জড়িয়ে পড়ে। তাতে পুলিশ বাহিনীতে সমস্যা হয়। পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের একজন কর্মকর্তা সংবাদকে জানান, কোন নেশাগ্রস্ত বা মাতাল যুবককে পুলিশ সদস্য হিসেবে নিয়োগ দিলেও সে কর্মস্থলে মাতলামি করবে। তার হাতে অস্ত্র দিলে তা দেশের জন্য ক্ষতিকর হবে। এর আগে সাব-ইন্সপেক্টর নিয়োগের পর ১০ থেকে ১২ জনকে নেশাগ্রস্ত বলে প্রমাণ পাওয়ার পর তাদের যোগদান অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। তাই এবার পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগের ক্ষেত্রে আগে থেকে প্রার্থী মাদকাসক্ত কিনা তা নিশ্চিত হওয়ার জন্য মাদক পরীক্ষা করা হবে। পরীক্ষায় প্রমাণ পাইলে বাদ। তার আর চাকরি হবে না।

এদিকে ঢাকা জেলা পুলিশের এক সূত্র জানায়, এই বছর অনেক মেধাবী ছাত্র পুলিশ কনস্টেবল হিসেবে চাকরিতে যোগদান করেছে। তাদের টার্গেট ঘুষ ছাড়া ১শ টাকা ফি দিয়ে চাকরি পাওয়া এখন বিরল। তাই আগেই কনস্টেবল হিসেবে চাকরিতে যোগদান করেছি। এরপর লেখাপড়া শেষ হলে আরও পদোন্নতি পাওয়া সম্ভব হবে। যার কারণে অনেকেই তদবির ছাড়াই পরীক্ষা দিয়ে চাকরি পেয়েছেন বলে পুলিশ কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

এই বছর কনস্টেবল নিয়োগে পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স নতুন কৌশল নিয়েছে। আইজি অফিসের টিম নিয়োগের সময় জেলা এসপি অফিসে খোঁজ-খবর রাখছেন। তারা নিয়োগে সহায়ক হিসেবে কাজ করছেন। আর পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগে কোন অনিয়ম হলে বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানাবেন। গোয়েন্দা সংস্থাগুলো আলাদা খোঁজ খবর নিচ্ছেন।

খবরটি পঠিত হয়েছে ১০১ বার
font
font
সর্বাধিক পঠিত
আজকের ভিউ
পুরোন সংখ্যা
Click Here
সম্পাদক - আলতামাশ কবির । ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক - খন্দকার মুনীরুজ্জামান । ব্যবস্থাপনা সম্পাদক - কাশেম হুমায়ুন ।
সম্পাদক কর্তৃক দি সংবাদ লিমিটেড -এর পক্ষে ৮৭, বিজয়নগর, ঢাকা থেকে মুদ্রিত এবং প্রকাশিত।
কার্যালয় : ৩৬, পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০। ফোন : ৯৫৬৭৫৫৭, ৯৫৫৭৩৯১। কমার্শিয়াল ম্যানেজার : ৭১৭০৭৩৮
ফ্যাক্স : ৯৫৫৮৯০০ । ই-মেইল : sangbaddesk@gmail.com
Copyright thedailysangbad © 2017 Developed By : orangebd.com.
close