logo

orangebd logo
বন্যার পানি কমছে
তীব্র হচ্ছে নদীভাঙন
সংবাদ ডেস্ক

দেশের বিভিন্ন স্থানে নদ-নদীর পানি কমতে শুরু করেছে। এতে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হচ্ছে। তবে তীব্র হয়েছে নদীভাঙন। এতে বিলীন হচ্ছে ঘরবাড়ি, ফসলি জমি। ফরিদপুরে পদ্মার পানি বিপদসীমার ১৪ সে.মি. ও বগুড়ায় যমুনার পানি ১৯ সে.মি. উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এদিকে সিরাজগঞ্জে এখন অনেক এলাকা পানিতে ডুবে আছে। উল্লাপাড়ায় বন্যার পানিতে ডুবে এক বৃদ্ধার মৃত্যু হয়েছে।

ফরিদপুর প্রতিনিধি জানান, ফরিদপুরের নদ-নদীর পানি কমছে_ তবে দেখা দিয়েছে বিভিন্ন এলাকায় ভাঙন। ফরিদপুরে পদ্মা, আড়িয়ালখাঁ ও মধুমতি নদীর বিস্তীর্ণ এলাকায় ভাঙন শুরু হয়েছে। প্রতিদিনই নদীতে বিলীন হয়ে যাচ্ছে ঘরবাড়ি, ফসলি জমি। ভাঙনের আশঙ্কায় ঘরবাড়ি সরিয়ে নিচ্ছে এলাকাবাসী।

গত ২৪ ঘণ্টায় পদ্মার পানি গোয়ালন্দ পয়েন্টে ১ সেন্টিমিটার কমে তা এখন বিপদসীমার ১৪ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

নদীর পানি কমতে থাকায় শুরু হয়েছে নদীভাঙন। ফরিদপুর সদর উপজেলার ডিক্রির চর ইউনিয়নের আয়েজউদ্দিন মাতুব্বরের ডাঙ্গি ও পাশের নর্থচ্যানেল ইউনিয়নের শুকুর আলী মৃধার ডাঙ্গি, চরভদ্রাসনের এমপি ডাঙ্গি ও মধুখালীর কামারখালী এলাকায় নদীভাঙন শুরু হয়েছে। এসব এলাকার ফসলি জমি, ঘরবাড়ি বিলীন হচ্ছে নদীতে। আশঙ্কার মধ্যে রয়েছে নদী পাড়ের মানুষগুলো।

অন্যদিকে জেলার চরভদ্রাসন উপজেলার এমপি ডাঙ্গিতে পদ্মার পাড়ে ভাঙন দেখা দিয়েছে। ওই ভাঙনের হুমকির মুখে পড়েছে চরভদ্রাসনে যাওয়ার সড়কটি। এছাড়াও জেলার মধুখালী উপজেলার কামারখালীতে মধুমতিতে ভাঙন শুরু হয়েছে। ভাঙনের ফলে বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সি আবদুর রউফের বাড়ি যাওয়ার একমাত্র সড়কটি চলাচলের অনুপোযোগী হয়ে পড়েছে।

বগুড়া প্রতিনিধি জানান, বর্তমানে যমুনার পানি বিপদসীমার ১৯ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। পানি কমার সঙ্গে সঙ্গে শুরু হয়েছে নদীভাঙন। এতে করে নদী পাড়ের মানুষের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে। অনেকে জান নিয়ে বাঁধসহ বিভিন্ন উঁচুস্থানে আশ্রয় নিলেও এখন তাদের বাড়িঘর টিকে থাকে কিনা তা নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছেন।

সরকারি হিসেবে, বগুড়ার ৩ উপজেলার ৯৩টি গ্রাম বন্যাকবলিত হয়ে প্রায় ১৭ হাজার ২৪৫টি পরিবারের ৯০ হাজার মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এর মধ্যে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধে আশ্রয় নিয়েছে সাড়ে ৩ হাজার পরিবার। সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে সারিয়কান্দি উপজেলা। বন্যাকবলিত ৩টি উপজেলায় ৫ হাজার ৮৫ হাজার হেক্টর ফসলি পানিতে নিমজ্জিত হয়েছে। এছাড়া ৪০৫ মেট্রিক টন খড় ও ৪৬০ মেট্রিক টন ঘাস বিনষ্ট হয়েছে। বন্যায় ৩টি উপজেলায় ১ হাজার ২৪৫টি নলকূপ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এরমধ্যে ১৮৪টি মেরামত করা হয়েছে এবং নতুন করে ৪০টি টিউবওয়েল স্থাপন করা হয়েছে। এছাড়া বাঁধে আশ্রিতদের জন্য ৯০টি ল্যান্ট্রিন স্থাপন করা হয়েছে। এছাড়া জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতর পানি বিশুদ্ধকরণের জন্য ১৮শ' বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট বিতরণ করেছে। বন্যার কারণে ৯১টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পানি প্রবেশ করায় সেগুলো এখনও বন্ধ রয়েছে।

সিরাজগঞ্জ জেলা বার্তা পেিবশক জানান,

সিরাজগঞ্জের উলাপাড়ায় বন্যার পানিতে ডুবে এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে। নিহত ব্যক্তি উল্লাপাড়ার ডেফলবাড়ী গ্রামের মৃত আখের আলীর স্ত্রী অবিরন নেছা (৭০)। নিহতের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

উল্লাপাড়া ফায়ার সার্ভিসের ওয়ার হাউজ ইন্সপেক্টর দিয়ানাতুল দিনার জানান, গত রোববার বিকেলে বৃদ্ধ অবিরন নেছা বাড়ির পাশে ডেফলবাড়ীর কোল ঘেঁষে বয়ে যাওয়া ফুলজোড় নদীতে পাট ধোয়ার কাজ করতে যান। সন্ধ্যা হলেও তিনি আর বাড়ি না ফিরলে পরিবারের লোকজন তাকে খোঁজাখুঁজি শুরু করে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা ঘটনাস্থলে পেঁৗছে ১ ঘণ্টা চেষ্টা করেও তাকে খুঁজে পায়নি। গতকাল ভোর ৫টার দিকে বড়হর ইউনিয়নের ফুলজোড় নদীতে ভাসমান লাশ দেখে পরিবারের লোকজন উদ্ধার করে। ধারণা করা হচ্ছে, সাঁতার না জানা এই বৃদ্ধা বন্যার পানির স্রোতে পা পিছলে পড়ে গিয়ে মারা যান।

খবরটি পঠিত হয়েছে ১০১ বার
font
font
সর্বাধিক পঠিত
আজকের ভিউ
পুরোন সংখ্যা
Click Here
সম্পাদক - আলতামাশ কবির । ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক - খন্দকার মুনীরুজ্জামান । ব্যবস্থাপনা সম্পাদক - কাশেম হুমায়ুন ।
সম্পাদক কর্তৃক দি সংবাদ লিমিটেড -এর পক্ষে ৮৭, বিজয়নগর, ঢাকা থেকে মুদ্রিত এবং প্রকাশিত।
কার্যালয় : ৩৬, পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০। ফোন : ৯৫৬৭৫৫৭, ৯৫৫৭৩৯১। কমার্শিয়াল ম্যানেজার : ৭১৭০৭৩৮
ফ্যাক্স : ৯৫৫৮৯০০ । ই-মেইল : sangbaddesk@gmail.com
Copyright thedailysangbad © 2017 Developed By : orangebd.com.
close