logo

orangebd logo
ছাত্রলীগ বেপরোয়া
* সিলেটে দু'গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত ১ * পাবিপ্রবিতে ধাওয়া-পল্টা ধাওয়া : হল ভাঙচুর * বরিশালে নববধূ ধর্ষণের দায়ে উপজেলা সভাপতি সুমন গ্রেফতার
সংবাদ ডেস্ক

সারাদেশে ফের বেপরোয়া হয়ে পড়েছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। ধর্ষণ, আধিপত্য বিস্তার নিয়ে আন্তঃকোন্দলে জড়িয়ে পড়া, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভাঙচুরসহ বিভিন্ন অপরাধে জড়িয়ে পড়ছে ছাত্রলীগ। বরিশালের বানারীপাড়ায় স্বামীকে বেঁধে রেখে নববধূকে ধর্ষণের মামলায় গ্রেফতার হয়েছে ছাত্রলীগ সভাপতি। সিলেটে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে মারা গেছে ১ জন। এছাড়া পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। ভাঙচুর করেছে ছাত্রাবাস। ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে দলের জ্যেষ্ঠ নেতাদের নির্দেশনাও মানছে না ছাত্রলীগের মাঠপর্যায়ের নেতাকর্মীরা। ছাত্রলীগের বেপরোয়া কর্মকা-ের কয়েকটি ঘটনায় আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর।

আমাদের সিলেট প্রতিনিধি জানান, ছাত্রলীগ দুই গ্রুপের আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সৃষ্ট বিরোধে সিলেটের বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজে ছাত্রলীগের এক কর্মীকে শ্রেণীকক্ষের ভেতরে ঢুকে গুলি করে হত্যা করা হয়। নিহত ছাত্রলীগ কর্মীর নাম খালেদ আহমদ লিটু (২৩)। লিটু ছাত্রলীগের পাভেল গ্রুপের কর্মী বলে জানা গেছে। সোমবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে।

সিলেটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুজ্ঞান চাকমা নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, সকালে কলেজে ছাত্রলীগের দু'পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি ঠা-া হওয়ার পর নিহত লিটুসহ ছাত্রলীগের একটি পক্ষ ওই কক্ষে বসেছিল। হঠাৎ গুলির শব্দ শুনে শ্রেণীকক্ষে পুলিশ ছুটে গিয়ে যুবকের লাশ উদ্ধার করে। নিহত লিটু ছাত্রলীগ কর্মী ও স্থানীয় মোবাইল দোকানদার বলে জানান তিনি। গুলিটি খালেদ আহমদ লিটুর মাথায় লেগেছে।

তিনি আরও বলেন, ওই কক্ষে অবস্থানরত অবস্থায় তিনজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। তবে তাৎক্ষণিকভাবে আটককৃতদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনেছে বলে জানিয়েছেন এ পুলিশ কর্মকর্তা।

সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রায়হান চৌধুরী জানান, খালেদ আহমদ লিটু ছাত্রলীগের কর্মী। কিছু বহিরাগতরা তাকে কলেজে ঢুকে হত্যা করেছে।

এদিকে আমাদের বরিশাল জেলা বার্তা পরিবেশক জানান, স্বামীকে আটকে রেখে নববধূকে ধর্ষণকারী বরিশাল জেলার বানারীপাড়া উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সুমন মোল্লাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গত রোববার রাত দশটার দিকে নগরীর কালীবাড়ি রোড এলাকা থেকে সুমন মোল্লাকে গ্রেফতার করে বানারীপাড়া থানা ও জেলা গোয়েন্দা ডিবি পুলিশ। ধর্ষিতার স্বামী টেম্পো চালক সেলিম মিয়া জানান, ১৫ দিন আগে চট্টগ্রামের লক্ষ্মীপুরের রামগতি উপজেলার পূর্ব সরসিতা গ্রামের এক মেয়েকে দ্বিতীয় স্ত্রী হিসেবে বিয়ে করে তিনি বানারীপাড়ায় নিয়ে আসেন। তার দ্বিতীয় বিবাহ প্রথম স্ত্রী মেনে না নেয়ায় নববধূকে নিয়ে গত শনিবার রাতে সেলিম উপজেলার বেতাল গ্রামের নানা শামসুল হক হাওলাদারের বাড়িতে যান। প্রথম স্ত্রীর পক্ষাবলম্বন করে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সুমন মোল্লা তার সহযোগীদের নিয়ে ওই বাড়িতে যায়। এ সময় নববধূকে সেলিম আনুষ্ঠানিকভাবে বিয়ে করেননি বলে অভিযোগ তুলে এক লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। সেলিম আরও জানান, তাদের দাবিকৃত চাঁদার টাকা দিতে অস্বীকার করায় রাতেই জোরপূর্বক তাকে ধরে নিয়ে বেতাল ক্লাবের একটি কক্ষে আটক করে রেখে তার নববিবাহিতা স্ত্রীকে স্থানীয় আনোয়ার বেগমের বাসায় নিয়ে রাতভর দলবদ্ধভাবে ধর্ষণ করা হয়। গত রোববার সকালে এলাকাবাসী সেলিমকে ক্লাবের কক্ষ থেকে উদ্ধার করে। পরে তারা থানা পুলিশের শরণাপন্ন হন।

বানারীপাড়া থানার ওসি সাজ্জাদ হোসেন জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে নগরীর কালীবাড়ি রোড থেকে ছাত্রলীগ নেতা সুমনকে গ্রেফতার করার পর গতকাল দুপুরে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

পাবনার নিজস্ব বার্তা পরিবেশক জানান, পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে হলের আধিপত্য বিস্তারে নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। গতকাল সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে দফায় দফায় এ ঘটনা ঘটে।

শিক্ষার্থীরা জানায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু হলের আধিপত্য নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহেদ সাদেকী শান্ত-সেক্রেটারি ওয়ালীউল্লাহ গ্রুপের সাথে সহ-সভাপতি আরাফাত হোসেন-মতিন গ্রুপের দ্বন্দ্ব চলছিল। এরই জের ধরে সোমবার সকালে সহ-সভাপতি আরাফাত গ্রুপের সমর্থকরা সভাপতি শান্ত গ্রুপের এক কর্মীকে মারধর করে। এ নিয়ে দুই গ্রুপের মধ্যে ক্যাম্পাস চত্বরে লাঠিসোঠা নিয়ে পাল্টপাল্টি ধাওয়া ও ইট পাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে। এক পর্যায়ে বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু হলের দুটি কক্ষে ভাঙচুর চালায়। এ সময় ক্যাম্পাসে উত্তেজনা দেখা দিলে শিক্ষার্থীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে পুলিশ ও র‌্যাব ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ ঘটনার পর থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাস বন্ধ হয়ে যায়। ক্যাম্পাস থমথমে পরিবেশ বিরাজ করায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

খবরটি পঠিত হয়েছে ১০১ বার
font
font
সর্বাধিক পঠিত
আজকের ভিউ
পুরোন সংখ্যা
Click Here
সম্পাদক - আলতামাশ কবির । ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক - খন্দকার মুনীরুজ্জামান । ব্যবস্থাপনা সম্পাদক - কাশেম হুমায়ুন ।
সম্পাদক কর্তৃক দি সংবাদ লিমিটেড -এর পক্ষে ৮৭, বিজয়নগর, ঢাকা থেকে মুদ্রিত এবং প্রকাশিত।
কার্যালয় : ৩৬, পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০। ফোন : ৯৫৬৭৫৫৭, ৯৫৫৭৩৯১। কমার্শিয়াল ম্যানেজার : ৭১৭০৭৩৮
ফ্যাক্স : ৯৫৫৮৯০০ । ই-মেইল : sangbaddesk@gmail.com
Copyright thedailysangbad © 2017 Developed By : orangebd.com.
close