logo

orangebd logo
ফ্রিজের সমস্যা শোনার নামে শিশু অপহরণ
২৭ ঘণ্টা পর উদ্ধার
নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

মুক্তিপণের দাবিতে ঢাকার কেরানীগঞ্জ থেকে অপহৃত ৩ মাসের শিশুকে অপহরণের অভিযোগে সুমন নামে এক অপহরণকারীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন র‌্যাব। অপহরণকারীর দেয়া তথ্য অনুযায়ী অপহৃত শিশুকে উদ্ধার করা হয়েছে। র‌্যাব জানায়, কেরানীগঞ্জের জিনজিরা এলাকার নামাবাড়ি রিভারভিউ সোসাইটির পিতৃছায়া ভবনের ৭ তলার বাসিন্দা মেডিকেল প্রমোশন অফিসার শাখাওয়াত হোসেনের বাসায় টিভি ফ্রিজ মেরামতের কাজ করতো একই এলাকার সুমন নামে এক মিস্ত্রি। সুমনের সঙ্গে শাখাওয়াতের ৭ থেকে ৮ মাস পূর্বে পরিচয় হয়। পরিচয়ের সুবাদে শাখাওয়াতের বাসার ইলেক্ট্রনিঙ্ পণ্যের মেরামতের কারণে ওই বাসায় সুমনের যাতায়াত ছিল। পূর্ব পরিচয়ের সুবাদে গত ১৭ মে সুমন শাখাওয়াতের বাসায় যায়। এ সময় শাখাওয়াত বাসায় ছিল না। দরজা নক করতেই শাখাওয়াতের স্ত্রী রিতু ইসলাম দরজা খুলে দেয়। বাসার টিভি ফ্রিজের কোন সমস্যা আছে কিনা জানতে চেয়ে সুমন ঘরে প্রবেশ করে। শাখাওয়াতের স্ত্রী সুমনকে জানায় তাদের টিভি ফ্রিজের কোন সমস্যা নেই। সুমনকে এক রুমে বসতে দিয়ে পাশের রুমে যায় শাখাওয়াতের স্ত্রী মিতু। কয়েক মিনিট পর এসে দেখতে পায় সুমন নেই এবং দরজা বাইরে থেকে আটকানো। এক পর্যায়ে ডাক চিৎকার দিলে পাশের বাসার ভাড়াটিয়া এসে দরজা খুলে দেয়। শাখাওয়াতের স্ত্রী রুমের মধ্যে গিয়ে দেখে তার ৩ মাসের শিশু সন্তান কোথাও নেই। তখন সে বুঝতে পারে সুমনই তার মেয়েকে নিয়ে পালিয়ে গেছে। এক পর্যায়ে তিনি বিষয়টি তার স্বামী শাখাওয়াতকে জানালে শাখাওয়াত বাসায় ছুটে আসে। এর মধ্যে সুমনকে ফোন করলে তার মোবাইল বন্ধ পাওয়া যায়।র‌্যাব জানায়, প্রায় ১ ঘণ্টা পর সুমন নামের ০১৭৫৬-৩২৩৮৭৫ নম্বর ব্যক্তিগত মোবাইল সিম থেকে শাখাওয়াতের স্ত্রীর ০১৭৫৫-২৫৩২৫৭ নম্বর মোবাইলে ফোন করে বলে আমি তোর মেয়েকে নিয়ে চলে এসেছি তুই যদি তোর মেয়েকে ফেরত পেতে চাস তবে ২ লাখ টাকা রেডি রাখ। যখন বলবো নিয়ে আসবি। র‌্যাব-পুলিশ কাউকে জানালে তোর মেয়েকে পাবি না বলে সুমন ফোন কেটে দেয়। এর পর শাখাওয়াত সুমনের সঙ্গে কথা বলতে বার বার চেষ্টা করলেও ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। ওই দিন রাত ১১টার দিকে সুমন আবার ফোন করে জানায়, তাড়াতাড়ি টাকার ব্যবস্থা করে রাখ। এর পর সারারাত মোবাইল বন্ধ রেখে ১৮ মে সকালে আবার ফোন করে টাকা জোগার করেছে কিনা জানতে চেয়ে বলে, তোর মেয়ে ভালো আছে আমি ফোন করে বলবো কখন কোথায় কিভাবে টাকা দিতে হবে। এ কথা পুলিশকে জানালে মেয়ে মেরে ফেলার হুমকি দেয়।এ সংক্রান্ত অভিযোগ র‌্যাব ১০-এর কাছে করার পর র‌্যাব শিশুর স্বজন সেজে সুমনের সঙ্গে টাকা দেয়ার বিষয়ে যোগাযোগ করে। এক পর্যায়ে র‌্যাবের ফাঁদে টাকা নিতে এসে গ্রেফতার হয় অপহরণকারী সুমন। পরে সুমনের দেয়া তথ্যে কেরানীগঞ্জের গোলাম কাঁচা বাজারের কাছে হাবিব কলোনী গলিতে হাবিব মিয়ার দোতলা বাড়ির দ্বিতীয় তলার ভাড়াটিয়া আবদুল হক নালীর বাসা থেকে অপহৃত ৩ মাস বয়সী শিশু শিন'কে উদ্ধার করা হয়। গ্রেফতারের পর সুমন জানায়, সে ৪ মাস ধরে ইলেক্ট্রনিঙ্-এর কাজ করে। টাকার জন্যই সে ৩ মাসের শিশুকে অপহরণ করেছে। শিশুটিকে অপহরণের পর সে আবদুল হক নালীর ভাড়াটিয়া পারভেজের বাসায় শিশুটিকে নিয়ে যায়। সেখানে পারভেজকে জানায়, শিশুটির মা নেই। তাই সে শিশুটিকে দত্তক নিয়েছে। শিশুটিকে সে মাদারীপুরে নিয়ে যাবে।

খবরটি পঠিত হয়েছে ১০১ বার
font
font
সর্বাধিক পঠিত
আজকের ভিউ
পুরোন সংখ্যা
Click Here
সম্পাদক - আলতামাশ কবির । ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক - খন্দকার মুনীরুজ্জামান । ব্যবস্থাপনা সম্পাদক - কাশেম হুমায়ুন ।
সম্পাদক কর্তৃক দি সংবাদ লিমিটেড -এর পক্ষে ৮৭, বিজয়নগর, ঢাকা থেকে মুদ্রিত এবং প্রকাশিত।
কার্যালয় : ৩৬, পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০। ফোন : ৯৫৬৭৫৫৭, ৯৫৫৭৩৯১। কমার্শিয়াল ম্যানেজার : ৭১৭০৭৩৮
ফ্যাক্স : ৯৫৫৮৯০০ । ই-মেইল : sangbaddesk@gmail.com
Copyright thedailysangbad © 2017 Developed By : orangebd.com.
close