logo

orangebd logo
পরিষদ চত্বরে খামারে স্বাবলম্বী মতিন
প্রতিনিধি, শাহরাস্তি (চাঁদপুর)

চাঁদপুরের শাহরাস্তি উপজেলার সূচিপাড়া (দঃ) ইউনিয়নের রাগৈ গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত সৈনিক আবদুল মতিন সর্দার সফল উদ্যোক্তা খামারী হিসেবে শাহরাস্তি উপজেলায় সবার দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে। তার উদ্যোগ দেখে এলাকায় ছোট ছোট খামার গড়ে উঠেছে। ১৯৯৭ সালে সেনাবাহিনীর সৈনিক হিসেবে অবসর গ্রহণ করে দীর্ঘদিন যাবৎ বেকার জীবনযাপন করেছেন। চাকরিকালীন সময়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে মুরগির খামার, মাছের ঘের দেখে খামার স্থাপন করার বাসনা তৈরি হয়। সেই থেকে ২০০৮ সালে ৩ হাজার লেয়ার মুরগি দিয়ে ছোটখাট একটি খামার স্থাপন করেন। সে ধারাবাহিকতায় দিনের দিন তার এ খামারের পরিধি আরো বাড়তে থাকে। বর্তমানে এ খামারে ১১ হাজার লেয়ার (ডিম পাড়া) মুরগি ও ৩ হাজার কক (মাংস উৎপাদন) মুরগি রয়েছে। প্রতি দু'মাস পর পর মাংস উৎপাদনের মুরগিগুলো প্রায় ২৪০ টাকা দরে বিক্রি করে দেন। ডিম উৎপাদন লেয়ার মুরগি থেকে প্রতি মাসে ২ লাখ ২০ হাজার ডিম উৎপাদন করা হচ্ছে। এতে প্রতি মাসে ৩ লাখ টাকা আয় হচ্ছে। প্রতি দিন ১৫ জন শ্রমিক নিয়মিত ও গড়ে ২০ জন শ্রমিক খামারে কাজ করছে। প্রতি মাসে শ্রমিকদের বেতন ভাতা বাবদ ১ লাখ ৩০ হাজার টাকা ব্যয় হচ্ছে। এছাড়া চলতি মৌসুমে ৮০ একর সম্পত্তির মাছের ঘের স্থাপন করা হয়েছে। এতে কার্প জাতীয় মাছ, শরপুঁটি ও দেশীয় প্রজাতির মাছ কৈ, শিং, টেংরাসহ বিভিন্ন প্রজাতির মাছ চাষ করা হচ্ছে। এতে চলতি মৌসুমে ১ কোটি টাকা বিনিয়োগ করা হয়েছে। এ মৌসুমেই ওই মাছের ঘের থেকে বাৎসরিক দেড় কোটি টাকা আয়ের সম্ভাবনা রয়েছে। এই মাছের ঘেরে বর্ষা মৌসুমে ৫০ জন শ্রমিক কাজ করছেন।

সফল উদ্যোক্তা আবদুল মতিন সর্দার জানান, যে আশা নিয়ে মুরগি ও মাছের ঘের স্থাপন করেছি, এতে আমি সফলতার দিকে এগিয়ে যাচ্ছি। মাছ, মাংস, ডিম এলাকায় চাহিদা মিটিয়ে, পার্শ্ববর্তী রামগঞ্জ ও হাজীগঞ্জ উপজেলাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে চট্টগ্রাম ও বাহ্মণবাড়িয়া এলাকার পাইকারী ব্যবসায়ীরা এসে মুরগি, ডিম নিয়ে যায়। খামারের ময়লা অত্যাধুনিক মেশিনের মাধ্যমে পরিশোধিত হয়ে বায়োগ্যাস প্লান্টে যায়। খামারের এ বর্জ দিয়ে বায়োগ্যাস প্লান্ট স্থাপন করে খামারের ও বাড়ির বিদ্যুৎ ও জ্বালানির চাহিদা মেটানো হচ্ছে। তিনি আরো জানান, উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিস থেকে যে ধরণের সেবা ও সহযোগিতা প্রয়োজন ছিল এ উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিসের সে গ্রেডের সেবা প্রাপ্তির সাপোর্ট নাই। তারপরও এ অফিস থেকে আমরা বিভিন্ন ধরনের সহযোগীতা পেয়ে আসছি। আমাদের ব্যাপকভাবে ওষুধসহ যাবতীয় সরঞ্জামাদি দিয়ে সহযোগীতা করছে রেনেটা ফার্মাসিউটিক্যাল। তিনি আরো জানান ভবিষ্যতে পরিবেশসম্মত ভাবে কন্টোল সেড নির্মান করে ১ লক্ষ ২০ হাজার লেয়ার (ডিম পাড়া) মুরগি ও ডিম উৎপাদন ও মাছের রেনু উৎপাদনের পরিকল্পনা রয়েছে। বর্তমানে আমার মুরগি খামারটি ৪ একর জমির ওপর স্থাপিত রয়েছে, ভবিষ্যতে এর পরিধি আরও বৃদ্ধি করে তাপমাত্রা ও পরিবেশের সামঞ্জশ্য রেখে খামার স্থাপন করা হবে।

খবরটি পঠিত হয়েছে ১০১ বার
font
font
সর্বাধিক পঠিত
আজকের ভিউ
পুরোন সংখ্যা
Click Here
সম্পাদক - আলতামাশ কবির । ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক - খন্দকার মুনীরুজ্জামান । ব্যবস্থাপনা সম্পাদক - কাশেম হুমায়ুন ।
সম্পাদক কর্তৃক দি সংবাদ লিমিটেড -এর পক্ষে ৮৭, বিজয়নগর, ঢাকা থেকে মুদ্রিত এবং প্রকাশিত।
কার্যালয় : ৩৬, পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০। ফোন : ৯৫৬৭৫৫৭, ৯৫৫৭৩৯১। কমার্শিয়াল ম্যানেজার : ৭১৭০৭৩৮
ফ্যাক্স : ৯৫৫৮৯০০ । ই-মেইল : sangbaddesk@gmail.com
Copyright thedailysangbad © 2017 Developed By : orangebd.com.
close