logo

orangebd logo
না'গঞ্জে ১৬ নৌযান মালিকের বিরুদ্ধে মামলা
প্রতিনিধি, নারায়ণগঞ্জ

নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে রাতের বেলায় চলাচল, সার্ভে সার্টিফিকেট না থাকা, রেজিস্ট্রেশন, সুকানি, ড্রাইভার এর সনদ না থাকাসহ বিবিধ ত্রুটি থাকা এবং সনদধারী মাস্টার, সুকানী, ড্রাইভার, গীজার বিহীন ঝুঁকিপূর্ণভাবে চলাচল করায় নারায়ণগঞ্জে ১৬টি নৌযানের মালিকের বিরুদ্ধে নৌ-আদালতে মামলা দায়ের করেছে বিআইডবিস্নউটিএ নারায়ণগঞ্জ নদীবন্দর কতৃপক্ষ। গত ১৪ ও ১৬ মে নারায়ণগঞ্জ নদী বন্দরের নৌ-নিট্রা বিভাগের সহকারী পরিচালক বাবু লাল বৈদ্য বাদি হয়ে অভ্যন্তরীন নৌ-অধ্যাদেশ এর কয়েকটি ধারায় নৌপরিবহন অধিদফতরের নৌ-আদালতে ওই ১৬টি নৌযানের বিরুদ্ধে পৃথক দু'টি মামলা দায়ের করেন। মামলার বাদি বাবু লাল বৈদ্য জানান, নারায়ণগঞ্জ নদী বন্দরের নিয়ন্ত্রনাধীন বিভিন্ন এলাকায় নৌযান পরিদর্শন করে মামলা দুটি দায়ের করা হয়েছে। মামলার আসামিরা হলেন, এমবি শাহ আলী-২ এর মালিক শেখ মোঃ আসেক ও সাইফুর রহমান, এমবি হাজী শফিউদ্দিন-৫ ও এমবি রাকিব তুষার-৪ এর মালিক হাজী শফিউদ্দিন আহমেদ, এমভি মাইমুনা-৬ এর মালিক সাইদুল ইসলাম, এমভি দোলন-০১ এর মালিক এস এম ফুয়াদ, এমভি সৌরভ এন্ড তায়েবের মালিক তপন মিয়া ও রিটন মিয়া, এমবি ফোর স্টারের মালিক হাজী ফরিদ মিয়া, এমবি প্রিমার মালিক সানোয়ার আলী শাহ ওরফে সলিম, এমবি মোসলেহ উদ্দিনের মালিক মোসলেহ উদ্দিন, এমবি সাহান-২ এর মালিক মুক্তার হোসেন শেখ, এমবি চলন্তিকার মালিক মাস্টার আলী, গোলাম কিবরিয়া, দ্বীন ইসলাম, বাছন মিয়া। নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে রাতের বেলায় চলাচল করায় ৪টি নৌযানের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়। এ মামলার আসামিরা হলেন, এমভি চাঁদতারা-২ এর মালিক মোজাম্মেল হক গং, এমভি উদয়ের পথে-৮ এর মালিক আব্দুল হাই গং, এমবি এমএস এর মালিক আব্দুল জলিল, এমবি জুই-১ এর মালিক মোফাজ্জল হোসেন।

খবরটি পঠিত হয়েছে ১০১ বার
font
font
সর্বাধিক পঠিত
আজকের ভিউ
পুরোন সংখ্যা
Click Here
সম্পাদক - আলতামাশ কবির । ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক - খন্দকার মুনীরুজ্জামান । ব্যবস্থাপনা সম্পাদক - কাশেম হুমায়ুন ।
সম্পাদক কর্তৃক দি সংবাদ লিমিটেড -এর পক্ষে ৮৭, বিজয়নগর, ঢাকা থেকে মুদ্রিত এবং প্রকাশিত।
কার্যালয় : ৩৬, পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০। ফোন : ৯৫৬৭৫৫৭, ৯৫৫৭৩৯১। কমার্শিয়াল ম্যানেজার : ৭১৭০৭৩৮
ফ্যাক্স : ৯৫৫৮৯০০ । ই-মেইল : sangbaddesk@gmail.com
Copyright thedailysangbad © 2017 Developed By : orangebd.com.
close