logo

orangebd logo
ব্রেক্সিট আলোচনায় বিরোধী নেতা করবিনকে চায় ইইউ
সংবাদ ডেস্ক

ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) থেকে যুক্তরাজ্যের বেরিয়ে যাওয়া প্রক্রিয়া ব্রেক্সিট সংক্রান্ত আলোচনায় ব্রিটেনের পক্ষ থেকে লেবার নেতা জেরেমি করবিনকেও অন্তর্ভুক্ত করা উচিত বলে মনে করছে সংস্থাটির শীর্ষ কর্মকর্তা গাই ভেরহোফস্তাদ। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে'র কাছে এ আলোচনায় করবিনকে অন্তর্ভুক্ত করার প্রস্তাব দিয়েছেন তিনি। দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট।ইইউর শীর্ষ কর্মকর্তা গাই ভেরহোফস্তাদ ইউরোপীয় পার্লামেন্টের ব্রেক্সিট সমন্বয়কের ভূমিকা পালন করছেন। তিনি বলেছেন, নির্বাচনে কনজারভেটিভ পার্টির সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারানো প্রকৃতপক্ষে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর ব্রেক্সিট পরিকল্পনাকে দুর্বল করে দিয়েছে। তাই ইইউর সঙ্গে আলোচনায় অন্যদেরও যুক্ত করা উচিত। বেলজিয়ামের সাবেক এ প্রধানমন্ত্রী মনে করেন, গত মধ্যবর্তী নির্বাচনের ফল থেরেসা মে'র জন্য 'আত্মঘাতী গোল' হয়ে দাঁড়িয়েছে। তিনি বলেন, এখন আলোচনায় তারা বাকিদেরও নেবেন কিনা এটা সরকারের সিদ্ধান্ত নিতে হবে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্টকে দেয়ার এক সাক্ষাৎকারে ভেরহোফস্তাদ বলেন, 'ব্রেক্সিট পুরো যুক্তরাজ্যের বিষয়। ব্রিটেনবাসীকে এটা প্রভাবিত করবে। একটি নির্দিষ্ট রাজনৈতিক দলের চেয়ে এটা অনেক বড় বিষয়। এর সঙ্গে অনেকের জীবন জড়িত।' তিনি আরও বলেন, 'আমি বিশ্বাস করি আলোচনায় আরও মানুষের অংশ নেয়া উচিত। আর এতে ভিন্ন মতও আসতে পারে। নির্বাচনের ফলের পর এটা স্পষ্ট যে ব্রেক্সিট নিয়ে মে'র পরিকল্পনা একটু কঠিনই হবে।'আলোচনায় অন্য দলের নেতা অন্তর্ভুক্ত করা উচিত হবে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে ভেরহোফস্তাদের মুখপাত্র বলেন, থেরেসা মে এখনও পর্যন্ত খুবই দুর্বলভাবে আলোচনা চালিয়েছেন। কাউকে অন্তর্ভুক্ত করাটা ভালো সিদ্ধান্ত হবে। তবে বিষয়টি পুরোপুরি ব্রিটিশ সরকারের ওপর নির্ভর করছে।ব্রেক্সিট নিয়ে যেকোনও আলোচনায় ভেটো দিতে পারে ইউরোপীয় পার্লামেন্ট। ফলে এ আলোচনায় করবিনের অবস্থান খুবই গুরুত্বপূর্ণ। যদিও ব্রিটেনের সঙ্গে তিনি সরাসরি আলোচনায় অংশ নিচ্ছেন না। কোন অবস্থায় ব্রেঙ্েিটর বিপক্ষে ইউরোপীয় পার্লামেন্ট ভোট দিতে পারে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ইতোমধ্যে পার্লামেন্ট 'রেড লাইন' প্রকাশ করেছে। তিনি বলেন, 'আমরা বিস্তারিতভাবেই জানিয়েছি যে ইউরোপীয় নাগরিকদের বিষয়গুলো দেখতে হবে। নিরাপত্তা ও অর্থনৈতিক সম্পর্ক যেন ব্যহত না হয় সেটাও দেখতে হবে। আয়ারল্যান্ডের সঙ্গে বিরূপ কোনও আচরণ করা হবে না। নিজেদের সব প্রতিশ্রুতি রাখতে হবে যুক্তরাজ্যকে।'করবিন ও শ্যাডো ব্রেক্সিট সেক্রেটারি স্যার কেইর স্টারমার মাইকেল বার্নিয়ার সঙ্গে দেখা করার পর ইইউ-ব্রিটেন ব্রেক্সিট আলোচনায় করবিনের অন্তর্ভুক্তির প্রশ্নটি জোরালো হয়ে ওঠে। তবে ইউরোপীয় ইউনিয়ন কর্মকর্তারা জানায়, তারা শুধু সরকারের সঙ্গেই আলোচনা করবে। ব্রেক্সিট নিয়ে ইইউর প্রধান আলোচক বার্নিয়ার স্কটিশ ফার্স্ট মিনিস্টার নিকোলা সার্জম ওয়েলসের ফার্স্ট মিনিস্টার কারউইন জোনসের সঙ্গে কথা বলেছেন।এদিকে করবিন জানান তিনি ১ কোটি ৩০ লাখ মানুষকে প্রতিনিধিত্ব করছেন। ব্রেক্সিট আলোচনা যুক্তরাজ্যের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ।তিনি বলেন, 'আমরা আলোচনায় আমাদের জীবন মান ও কর্মসংস্থান নিশ্চিত করতে চাই। এবং ইইউ পুরো বিষয়টা কিভাবে দেখছে সেটা বুঝতে চাই।' করবিন দাবি করেন, লেবার পার্টি এখন অপেক্ষায় থাকা সরকার। তারা ব্রেক্সিট নিয়ে যেকোন আলোচনার জন্য প্রস্তুত।একইসঙ্গে ইউরোপীয় প্রতিবেশীদের সঙ্গে সব সময় সুসম্পর্ক বজায় রাখতে চান বলে জানান করবিন। জুলাইয়ে ব্রেক্সিট নিয়ে দ্বিতীয় দফায় আলোচনা হওয়ার কথা রয়েছে। এ আলোচনায় ব্রিটিশ নাগরিকদের বিষয়টি প্রাধাণ্য পাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ইউরোপ ও ব্রিটেন সে বিষয়টি সামনে রেখেই আলোচনা চালিয়ে যাবে। বর্তমান পরিকল্পনা অনুযায়ী, যুক্তরাজ্যে পরিবার নিয়ে আসতে পারবেন না ইইউ নাগরিকরা। এছাড়াও ইউরোপীয় কোর্ট অফ জাস্টিসেও নিজেদের অধিকার হারিয়েছেন তারা।

খবরটি পঠিত হয়েছে ১০১ বার
font
font
সর্বাধিক পঠিত
আজকের ভিউ
পুরোন সংখ্যা
Click Here
সম্পাদক - আলতামাশ কবির । ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক - খন্দকার মুনীরুজ্জামান । ব্যবস্থাপনা সম্পাদক - কাশেম হুমায়ুন ।
সম্পাদক কর্তৃক দি সংবাদ লিমিটেড -এর পক্ষে ৮৭, বিজয়নগর, ঢাকা থেকে মুদ্রিত এবং প্রকাশিত।
কার্যালয় : ৩৬, পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০। ফোন : ৯৫৬৭৫৫৭, ৯৫৫৭৩৯১। কমার্শিয়াল ম্যানেজার : ৭১৭০৭৩৮
ফ্যাক্স : ৯৫৫৮৯০০ । ই-মেইল : sangbaddesk@gmail.com
Copyright thedailysangbad © 2017 Developed By : orangebd.com.
close