logo

orangebd logo
রয়টার্সের বিশেষ প্রতিবেদন
মার্কিন নির্বাচনে প্রভাব বিস্তারের চেষ্টা করেছিলেন পুতিন!
সংবাদ ডেস্ক

রাশিয়ার একটি গবেষণা প্রতিষ্ঠান মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে পছন্দের প্রার্থীকে বিজয়ী করার চেষ্টা করেছিল। ওই প্রতিষ্ঠানের ওপর পূর্ণাঙ্গ নিয়ন্ত্রণ রয়েছে রুশ প্রেসিডেন্ট ভস্নাদিমির পুতিনের। বার্তা সংস্থা রয়টার্স তাদের এক বিশেষ প্রতিবেদনে মার্কিন নির্বাচনে পুতিনের প্রভাব বিস্তারের এ প্রচেষ্টার তথ্য তুলে ধরেছে। মার্কিন প্রশাসনের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সাবেক-বর্তমান ৭ কর্মকর্তাকে উদ্ধৃত করে এ দাবি করেছে তারা।

ওই কর্মকর্তারা রয়টার্সকে জানিয়েছেন, মার্কিন নির্বাচনে প্রভাব বিস্তারের চেষ্টায় থাকা ওই রুশ গবেষণা প্রতিষ্ঠানের নাম রাশিয়ান ইনস্টিটিউট ফর স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজ। পুতিনের দফতর থেকে নিয়োগ পাওয়া এক সাবেক পররাষ্ট্র গোয়েন্দা কর্মকর্তা এখন ওই প্রতিষ্ঠানের দায়িত্বে রয়েছেন। মার্কিন প্রশাসনের ওই সাত কর্মকর্তা রয়টার্সের কাছে দাবি করেন, গত জুনে প্রথমবারের মতো একটি নথি প্রকাশ করে প্রতিষ্ঠানটি। ওই নথিতে সুনির্দিষ্ট কোন দিকনির্দেশনা ছিল না। তবে ওতে একটি প্রচারণা কর্মসূচি চালানোর কথা বলা হয়েছিল। মার্কিনিরা যেন রাশিয়ার প্রতি সহযোগিতামূলক দৃষ্টিভঙ্গির একজন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত করেন, সে উদ্দেশ্যেই ওই প্রচারণা চালাতে বলেছিল ইনস্টিটিউট ফর স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজ।

সাবেক ও বর্তমানের ওই ৭ কর্মকর্তার দাবি অনুযায়ী, জুনে প্রথম নথিটি প্রকাশিত হওয়ার পরে অক্টোবরে আরেকটি নথি প্রকাশিত হয়। সেখানে বলা হয়, ডেমোক্র্যাটিক প্রার্থী হিলারি ক্লিনটন নির্বাচন জিততে যাচ্ছেন। এজন্য রাশিয়ার ট্রাম্পের সমর্থনে কাজ করা উচিত। পরে তারা হিলারির ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করার চেষ্টা করেন। নথি দুটি মার্কিন গোয়েন্দাদের হাতে রয়েছে বলে দাবি করেছেন ওই ৭ কর্মকর্তা। তবে যুক্তরাষ্ট্র কিভাবে নথিগুলো সংগ্রহ করেছে সে তথ্য জানাননি তারা। রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিন শুরু থেকেই মার্কিন নির্বাচনে তার নিজের বা তার দেশের সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে। তবে রাশিয়ান ইনস্টিটিউট ফর স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজ নামের ওই রুশ প্রতিষ্ঠানটি এ নিয়ে কোন মন্তব্য করেনি।

এর আগে ওবামা প্রশাসন দাবি করেছিল, রাশিয়া ডেমোক্র্যাটিক পার্টির বিরুদ্ধে সাইবার হামলা চালিয়েছে। মার্কিন গোয়েন্দা কর্মকর্তাদের দাবি অনুযায়ী, পুতিন নিজেই সেই প্রভাব বিস্তার করতে চেয়েছিলেন। নির্বাচনে প্রভাব বিস্তার করতেই ওই গবেষণা প্রতিষ্ঠানের কাছে রোডম্যাপ চেয়েছিলেন তিনি। তবে সদ্য দায়িত্ব নেয়া রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প অবশ্য বরাবরই এ প্রভাবের কথা অস্বীকার করে আসছেন। ট্রাম্পের দাবি, তার নির্বাচনী প্রচারণায় কোন রুশ সংযোগ ছিল না। চলতি কংগ্রেসনাল ও এফবিআই তদন্তেও অবশ্য ট্রাম্পের সঙ্গে রুশ সংশ্লিষ্টতার প্রত্যক্ষ কোন প্রমাণও মেলেনি।

খবরটি পঠিত হয়েছে ১০১ বার
font
font
সর্বাধিক পঠিত
আজকের ভিউ
পুরোন সংখ্যা
Click Here
সম্পাদক - আলতামাশ কবির । ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক - খন্দকার মুনীরুজ্জামান । ব্যবস্থাপনা সম্পাদক - কাশেম হুমায়ুন ।
সম্পাদক কর্তৃক দি সংবাদ লিমিটেড -এর পক্ষে ৮৭, বিজয়নগর, ঢাকা থেকে মুদ্রিত এবং প্রকাশিত।
কার্যালয় : ৩৬, পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০। ফোন : ৯৫৬৭৫৫৭, ৯৫৫৭৩৯১। কমার্শিয়াল ম্যানেজার : ৭১৭০৭৩৮
ফ্যাক্স : ৯৫৫৮৯০০ । ই-মেইল : sangbaddesk@gmail.com
Copyright thedailysangbad © 2017 Developed By : orangebd.com.
close